• সোমবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১১ ১৪২৯

  • || ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

আজকের সাতক্ষীরা

কালনা সেতু: সাতক্ষীরার সঙ্গে ঢাকার দূরত্ব কমবে ৩০ কিলোমিটার

আজকের সাতক্ষীরা

প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২  

পদ্মা সেতুর পর এবার দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সীমান্তবর্তী জেলা সাতক্ষীরার মানুষের আরও একটি স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে নড়াইলের কালনা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে। আর এই সেতু চালু হলে এই জেলার আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও যোগাযোগ ব্যবস্থার নতুন দিগন্ত উন্মোচন হবে। জেলার উৎপাদিত কৃষি পণ্য ঢাকাতে নিয়ে যাওয়া আসাতেও সময় কমবে অনেক।

কালনা সেতু উদ্বোধন হলে ঢাকা থেকে সাতক্ষীরার দূরত্ব কমবে আরও ৩০ থেকে ৩৫ কিলোমিটার। এই সেতুর মাধ্যমে সাতক্ষীরার যোগাযোগ ব্যবস্থরা অভূতপূর্ব উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে ব্যবসায়-বানিজ্য সম্প্রসারন হবে বলে মনে করছেন বিশিষ্টজনরা। 

সাতক্ষীরা চেম্বার অফ কমার্সর সভাপতি নাসিম ফারুক খান মিঠু বলেন, ‘এই সেতু চালু হলে দেশের দ্বিতীয় বৃহৎ স্থলাবন্দর হিসাবে স্বীকৃত ভোমরা স্থলাবন্দরের গুরুত্ব আরও বৃদ্ধি পাবে। ফলে এই স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি আরো কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করছি।’ 

সাতক্ষীরা জেলা চিংড়ি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ডা. আবুল কালাম বাবলা বলেন, ‘মৎস্য ও কৃষিতে সমৃদ্ধ সাতক্ষীরা জেলার উৎপাদিত পণ্য স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের অভ্যান্তরে ও বিদেশে রপ্তানিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে পদ্মার সেতুর পর এই কালনা এই সেতু। দেশের হোয়াইট গোল্ড খ্যাত চিংড়ি শিল্পের রপ্তানিতে যোগ করবে নতুন মাত্রা।’ 

সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ ড. মোহাম্মদ জামাল উদ্দীন বলেন, ‘দক্ষিণের এই জেলার সঙ্গে ঢাকার সরাসরি যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে সুন্দরবনকে ঘিরে পর্যাটন ক্ষেত্রে নতুন অর্থনীতিক দাড় উন্মোচন হবে। এছাড়া জেলার উৎপাদিত কৃষি পণ্য দ্রুত সময়ের মধ্যে রাজধানীসহ দেশের অন্য জেলাতেও পৌঁছানো সম্ভব হবে।’

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম জানান, কালনা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে সাতক্ষীরার যোগাযোগ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন আসবে। এছাড়া কৃষি ও শিল্পক্ষেত্রে অর্থনৈতিক কর্মচাঞ্চল্যের পাশাপাশি জাতীয় অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখার আরো সুযোগ পাবে দক্ষিণের এ জেলাটি।

আজকের সাতক্ষীরা
আজকের সাতক্ষীরা