• মঙ্গলবার   ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৭ রজব ১৪৪৪

আজকের সাতক্ষীরা

বঙ্গবন্ধু হত্যা: নেপথ্যের কুশীলবদের খুঁজতে স্বাধীন কমিশন গঠনে রুল

আজকের সাতক্ষীরা

প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০২৩  

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার নেপথ্যের কারিগরদের খুঁজে বের করতে একটি কমিশন গঠনে সরকারের নিস্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা এবং কমিশন গঠনের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

আজ সোমবার (২৩ জানুয়ারি) বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল জারি করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সুবীর নন্দী দাস। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

অ্যাডভোকেট সুবীর নন্দী দাস বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনায়কদের হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে তদন্ত কমিশন গঠনের নজিরসহ এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট আইনের আলোকে বিভিন্ন দেশের আদালত কর্তৃক প্রকাশিত রায়ের নজির রিট আবেদনে তুলে ধরা হয়েছে।

এর আগে ২০২১ সালের ২৫ অক্টোবর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার ষড়যন্ত্রের নেপথ্যে থাকা কুশীলবদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশন গঠনের নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সুবীর নন্দী দাসের পক্ষে অ্যাডভোকেট মো. আসফাকোজ্জোহা এই রিটটি দায়ের করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব, আইন বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিবকে রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট ট্রাজেডির বিচার হলেও এর নেপথ্যে কারা ছিল সেটা বের করার দাবি উঠে আসছে বিভিন্ন মহল থেকে। সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরাও বিভিন্ন সময় সেই দাবি তুলেছেন। গত আগস্ট মাসে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক জানিয়েছিলেন, ১৬ ডিসেম্বরের পর এবং ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে জড়িতদের খুঁজে বের করতে কমিশন গঠন করা হবে। তবে মন্ত্রীর সেই আশ্বাসের বাস্তবায়ন হয়নি।

তখন আইনমন্ত্রী বলেছিলেন, এই কমিশন হবে কোনো প্রতিহিংসার প্রতিফলন নয়। এই কমিশন হবে দেশকে নতুন প্রজন্মের কাছে ইতিহাস জানানোর একটি কমিশন।

আনিসুল হক বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রত্যক্ষ খুনিদের বিচার হয়েছে। কিন্তু যারা খুনের নেপথ্য ষড়যন্ত্রকারী তাদের বিচার হয়নি। তাই কমিশন অব ইনকয়ারি অ্যাক্ট-এর অধীনে তদন্ত কমিশন গঠন করা হবে। উন্নত দেশ যদি তৈরি করতে হয় এবং তা যদি টিকিয়ে রাখতে হয় তাহলে দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এই হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে যারা ষড়যন্ত্রকারী তাদের স্বরূপ উন্মোচন করা দরকার। কমিশন সেই দায়িত্ব পালন করবে।

১৯৮২ সালে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্যদের দ্বারা গঠিত বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের তদন্ত কমিশনের প্রাথমিক প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এ বিষয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মম হত্যাকাণ্ডের ষড়যন্ত্র এবং তৎপরবর্তী পদক্ষেপসমূহ সম্পূর্ণ পর্যালোচনা ও নিরীক্ষার লক্ষ্যে একটি স্বাধীন তদন্ত কমিশন চেয়ে রিট দায়ের করা হয়।

আজকের সাতক্ষীরা
আজকের সাতক্ষীরা