• শুক্রবার   ০৩ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ১৯ ১৪২৭

  • || ১২ জ্বিলকদ ১৪৪১

আজকের সাতক্ষীরা
৩৫

সাসেক-২ প্রকল্পের ঋণচুক্তি আগামী সপ্তাহে

আজকের সাতক্ষীরা

প্রকাশিত: ১৩ মার্চ ২০২০  

সাউথ এশিয়ান সাব রিজিওনাল ইকোনমিক কো-অপারেশন সাসেক-২ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হচ্ছে ১৯১ কিলোমিটার দীর্ঘ এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর জাতীয় মহাসড়ক।  এর মাধ‌্যমে সড়কপথে যুক্ত হতে যাচ্ছে দেশের পাঁচটি জেলা। প্রকল্পের অনুকূলে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আগামী সপ্তাহে দাতা সংস্থার ঋণচুক্তি হতে যাচ্ছে।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ‘এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর মহাসড়ক উন্নীতকরণ’ (সাসেক-২) প্রকল্পটি টাঙ্গাইল-সিরাজগঞ্জ-বগুড়া-গাইবান্ধা ও রংপুরকে যুক্ত করবে। এরপর রংপুর থেকে পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা পর্যন্ত সাসেক প্রকল্প-৩ কাজ শেষ হলে পাঁচ দেশের মধ্যে আন্তর্জাতিক সড়ক নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত হবে এই মহাসড়ক।

সাসেক-২ প্রকল্পের অধীনে প্রতি কিলোমিটার সড়ক নির্মাণে ব্যয় হবে ৬৩ কোটি টাকার বেশি। পুরো প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা।  দ্বিতীয় সাউথ এশিয়া সাব রিজিওনাল ইকোনমিক কো-অপারেশন (সাসেক) সড়ক সংযোগ প্রকল্পের আওতায় এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এডিবি) আর্থিক সহযোগিতায় এ কাজ সম্পন্ন হবে।

এডিবি’র ঢাকা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী সপ্তাহে প্রকল্পের চুক্তি স্বাক্ষর হতে যাচ্ছে। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার (১৫ মার্চ) শেরেবাংলা নগরের এইসি সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ সরকার ও এডিবি’র মধ্যে প্রকল্পের অধীনে একটি প্যাকেজের চুক্তি স্বাক্ষর হবে। অর্থনৈতিক সর্ম্পক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতেমা নাসরিন এবং এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ চুক্তিতে স্বাক্ষর করবেন।

২০১৮ সালের ৮ নভেম্বর দুই হাজার ১১০ কোটি ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে সরকার ও এডিবির অর্থায়নে সাসেক সড়ক সংযোগ প্রকল্পের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেয় সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। গত বছরের ২৪ জানুয়ারি নির্মাণকাজ শুরুর লক্ষ্যে নির্মাণ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ৬ নং প্যাকেজের চুক্তি সই হয়। প্যাকেজ-৬ এর আওতায় ৬৭৫ কোটি টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম প্রান্ত থেকে হাটিকুমরুল মোড় পর্যন্ত প্রায় ২০ কিলোমিটার মহাসড়ক চারলেনে উন্নীত করা হবে। মহাসড়কের এ অংশে চুক্তির আওতায় সাতটি সেতু, ১৭টি কালভার্ট, কড্ডা এলাকায় একটি ফ্লাইওভার, পাঁচটি আন্ডারপাস এবং ১২টি বাস-বে নির্মাণ করা হবে ৩ বছরের মধ‌্যে (২০২১ সালের আগস্ট)।

এরপর গত বছরের নভেম্বরে প্রকল্পের ফ্যাকাল্টি ম্যানুয়াল, জেন্ডার অ্যাকশন প্ল্যান এবং ফাইনান্সিয়াল রিকোয়েস্ট রিপোর্ট তৈরি হয়।

এডিবির ঢাকা কার্যালয়ের মুখপাত্র গোবিন্দ বার রাইজিংবিডিকে বলেন, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। চলমান সাসেক সড়ক সংযোগ প্রকল্পটি বাংলাদেশে এডিবির অর্থায়নে চলমান ৫৩টি প্রকল্পের মধ্যে বর্ষসেরা প্রকল্প হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। মোট আট ক্যাটাগরির মধ্যে সামাজিক উন্নয়ন ও নিরাপত্তাসহ অনুকরণীয় এই দুই ক্যাটাগরিতে সেরা প্রকল্পের স্বীকৃতি পায় এটি।  নতুনত্ব ও উন্নত প্রযুক্তি ক্যাটাগরিতে প্রকল্পটি পায় দ্বিতীয় সেরার মর্যাদা।

তিনি বলেন, প্রকল্পের অধীনে এডিবির প্রধান কার্যালয় ৩৯ কোটি ৮৩ লাখ ৮০ হাজার ডলার অনুমোদন দিয়েছে। এ বিষয়ে ইআরডি’র সঙ্গে ঋণচুক্তি হতে যাচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ২০২১ সালের আগস্টে কাজ শেষ হওয়ার পর গোটা উত্তরাঞ্চলের অর্থনৈতিক চিত্র। যোগাযোগ ব্যবস্থায় আসবে ব্যাপক উন্নতি। রংপুর অঞ্চলের উন্নয়নে বর্তমান সরকারের গৃহীত মহাপ্রকল্পগুলোর একটি হচ্ছে এই সাসেক প্রকল্প-২ (এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর মহাসড়ক উন্নীতকরণ প্রকল্প)। টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা থেকে সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল হয়ে বগুড়ার ওপর দিয়ে রংপুরের মডার্ন মোড়ে সাসেক-২ প্রকল্প শেষ হবে।

প্রকল্পের পরবর্তী ফেজ সর্ম্পকে জানা গেছে, ২০২১ সাল নাগাদ সাসেক-২ প্রকল্পের কাজ শেষে শুরু হবে সাসেক প্রকল্প-৩ বা শেষ ধাপের কাজ। রংপুর থেকে পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা পর্যন্ত সাসেক প্রকল্প-৩ এর কাজ শেষ হওয়ার পর প্রকল্পটি আন্তর্জাতিক রূপ পাবে। তখন এ মহাসড়ক দিয়ে বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ভুটানের যানবাহন চলাচল করবে। এমনকি ভবিষ্যতে এ মহাসড়কে মিয়ানমারেরও যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে।  সাসেক মহাসড়ক প্রকল্প মূলত দক্ষিণ এশিয়ায় যোগাযোগ স্থাপনকারী গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠার একটি প্রকল্প, যা সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর বাণিজ্যিক সুবিধা নিশ্চিতের পাশাপাশি ভূ-রাজনৈতিক দিক দিয়েও ভূমিকা রাখবে।  ছয় লেনের এই মহাসড়কটি হবে এশিয়ান হাইওয়ে বিমসটেক করিডর ও সার্ক হাইওয়ে করিডরের গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

আজকের সাতক্ষীরা
আজকের সাতক্ষীরা